ওয়েব ডেস্ক : ওড়িশার বারাবাতি-কটক আসনের কংগ্রেস বিধায়ক সোফিয়া ফিরদৌস ইতিহাস সৃষ্টি করলেন। কারণ, ওড়িশা বিধানসভায় নির্বাচিত প্রথম মুসলিম মহিলা বিধায়ক তিনিই। ফিরদৌস ৮০০১ ভোটের ব্যবধানে বিজেপির পূর্ণ চন্দ্র মহাপাত্রকে পরাজিত করেছেন। ৩২ বছর বয়সের সোফিয়া ফিরদৌস একটি রাজনৈতিক পরিবার থেকে এসেছেন। প্রবীণ কংগ্রেস নেতা মহম্মদ মকিমের মেয়ে তিনি। ২০২৪ সালের ওড়িশা বিধানসভা নির্বাচনে তাঁর বাবা মকিমের পরিবর্তে ফিরদৌসকে প্রার্থী করে কংগ্রেস। জয়ী হন তিনি। ফিরদৌস ওডিশার প্রথম মহিলা মুখ্যমন্ত্রী নন্দিনী সতপথীর পদাঙ্ক অনুসরণ করলেন। ১৯৭২ সালে একই আসনের প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন নন্দিনী।

জানা গিয়েছে, ফিরদৌস কলিঙ্গ ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডাস্ট্রিয়াল টেকনোলজি থেকে সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং ডিগ্রি অর্জন করেন। ২০২২ সালে তিনি ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ ম্যানেজমেন্ট, ব্যাঙ্গালোর থেকে সম্পন্ন করেন একটি এক্সিকিউটিভ জেনারেল ম্যানেজমেন্ট প্রোগ্রাম। ২০২৩ সালে কনফেডারেশন অফ রিয়েল এস্টেট ডেভেলপারস অ্যাসোসিয়েশন অফ ইন্ডিয়া (ক্রেডাই)-এর ভুবনেশ্বর শাখার সভাপতি নির্বাচিত হন ফিরদৌস। তিনি ক্রেডাই মহিলা শাখার পূর্বাঞ্চল শাখার কো-অর্ডিনেটর হিসেবেও কাজ করেন। ফিরদৌস সিআইআই – ইন্ডিয়ান গ্রীন বিল্ডিং কাউন্সিল-এর ভুবনেশ্বর শাখার সহসভাপতি এবং আইএনডব্লিউইসি ইন্ডিয়ার একজন মূল সদস্য। তাঁর স্বামী শেখ মেরাজ উল হক একজন উদ্যোগপতি।

উল্লেখ্য, ২০২৪ সালের ওড়িশা বিধানসভা নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করেছে বিজেপি। ১৪৭টি আসনের মধ্যে ৭৮টি আসনে জয়ী হয়েছে এই দল। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়ক এবং বিজু জনতা দলের (বিজেডি) ২৪ বছরের শাসনের অবসান ঘটিয়েছে তারা। লোকসভা নির্বাচনেও রাজ্যের ২১টি আসনের মধ্যে ২০টিতেই জয়ী হয়েছে বিজেপি। ২০১৯ সালের নির্বাচনে এই রাজ্যে বিজেপি ১২টি লোকসভা আসন দখল করেছিল। এবার বেড়ে হয়েছে ২০টি আসন। বাকি একটি আসন দখল করেছে কংগ্রেস। আর একটি আসনও জিততে পারেনি বিজেডি।

ছবি : সোফিয়া ফিরদৌস-এর ইনস্টাগ্রাম থেকে সংগৃহীত

33 Views