আশিস কুমার ঘোষ, গোবরডাঙ্গা

তরুণ তুর্কি নাট্যদল গোবরডাঙ্গা আকাঙ্ক্ষা নাট্য সংস্থার উদ্যোগে গত ৪ বৃহস্পতিবার আকাঙ্ক্ষার নিজস্ব উপাসনা নাট্যগৃহে সন্ধ্যায় ঘরোয়া পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয় ত্রি কবি তর্পণ। মঙ্গলদীপ প্রজ্জ্বলনের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের শুভ সূচনা করেন বিশিষ্ট তিন বর্ষিয়ান নাট্য ব্যক্তিত্ব নারায়ণ বিশ্বাস, প্রতাপ সেন ও সুভাষ চক্রবর্তী। গত ৪ জুলাই বৃহস্পতিবার যুব নায়ক স্বামী বিবেকানন্দের প্রয়াণ দিবসে স্বামীজিকে স্মরণ করে বিশিষ্ট সংগীতশিল্পী নমিতা বিশ্বাস সংগীত পরিবেশন করেন। তবলায় সঙ্গত করেন চাঁদপাড়া অ্যাক্টো সংস্থার কর্ণধার তথা বিশিষ্ট অভিনেতা সুভাষ চক্রবর্তী। এইদিন সন্ধ্যায় ছিল আকাঙ্ক্ষার আয়োজনে এক ঘরোয়া সেমিনার। বিষয় ছিল, বাংলার নাট্যাঙ্গানে রবীন্দ্র- নজরুল- সুকান্ত। এই বিষয়ে আলোকপাত করেন বিশিষ্ট পরিচালক তথা গোবরডাঙ্গা নাট্যায়নের কর্ণধার নারায়ণ বিশ্বাস, চাঁদপাড়া অ্যাক্টো সংস্থার কর্ণধার সুভাষ চক্রবর্তী, বিশিষ্ট নাট্য পরিচালক প্রতাপ সেন, বাবুপাড়া আত্মজর কর্ণধার তাপস দাস ও সাহিত্যের ছাত্র শৌণক মুখার্জি। সকলের বক্তব্যের মধ্যে দিয়ে উঠে আসে ৩ প্রজন্মের তিন কবি তাদের নিজ নিজ ক্ষেত্রে বাংলার নাট্যাঙ্গনে যে অবদান রেখেছেন তার কথা।

বিশ্বকবি, বিদ্রোহী কবি এবং কিশোর কবিকে সকলে স্মরণ করেন তাদের সঙ্গীত, নৃত্য ও আবৃত্তি উপস্থাপনার মধ্য দিয়ে। আবৃত্তি পরিবেশন করে আকাঙ্ক্ষার শিশুশিল্পী অরণ্য সরকার ও শুভম মণ্ডল। বিশিষ্ট নৃত্যশিল্পী তথা নটরাজ কলা কেন্দ্রের কর্ণধার প্রিয়া দাসের নৃত্য এদিনের অনুষ্ঠানকে এক অন্য মাত্রা দেয়। সমগ্র অনুষ্ঠানের সঞ্চালনা করেন দলের অভিনেতা তথা পরিচালক দীপাঙ্ক দেবনাথ। ত্রি কবিকে স্মরণ করে সংগীত পরিবেশন করেন বিশিষ্ট সংগীতশিল্পী সোনালী দাস। আকাঙ্ক্ষার খুদে শিল্পী অহনা দেবনাথের নৃত্য এদিনের উজ্জ্বলময় সন্ধ্যাকে প্রাণবন্ত করে তোলে। পরিশেষে ছিল বাবুপাড়া আত্মজ নাট্য সংস্থা প্রযোজিত শ্রুতি নাটক রোগীর বন্ধু। রচনায় কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এবং নির্দেশনায় তিলক মুখার্জি। উপস্থিত সমস্ত শিশুসহ সকল দর্শক সম্পূর্ণ অনুষ্ঠানটি উপভোগ করেন। দলের সম্পাদিকা তনুশ্রী দেবনাথ (দত্ত) জানান, আমরা প্রতিবছরই ঘরোয়া ভাবে সকলে এক জায়গায় বসে কবিকে স্মরণ করি। এই তিন প্রজন্ম আমাদের চলার পথের রসদ। আমাদের আজকের এই অনুষ্ঠান যেন রবির কিরণে আলোকিত হয়ে উঠল।

50 Views