ওয়েব ডেস্ক : ফের চ্যালা কাঠের নিদান দিলেন বারাসাতের বিজেপি প্রার্থী স্বপন মজুমদার। লোকসভা ভোটের দিন ভারতীয় জনতা পার্টির কর্মকর্তা ও সমর্থকরা চ্যালা কাঠ নিয়ে ভোটকেন্দ্রের বাইরে রেডি থাকবেন বলেও হুমকি দিলেন তিনি। তাঁর কথায়, গণতন্ত্রে ভোট লুটকে সমর্থন করা যায় না। এবারে দিদির পুলিশ নয়, দাদার পুলিশ দিয়েই ভোট হবে। এভাবেই রীতিমতো হুমকি দিলেন স্বপন মজুমদার। বৃহস্পতিবার কল্যাণগড়ে বিজেপি কার্যকর্তাদের নিয়ে একটি বৈঠক করেন তিনি। এরপর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে এভাবেই হুমকি দেন বিজেপি প্রার্থী স্বপন মজুমদার। পাশাপাশি বারাসাত কেন্দ্রের বাম প্রার্থী বদল নিয়েও বিস্ফোরক অভিযোগ করেন তিনি। তাঁর দাবি, তৃণমূলের থেকে টাকা নিয়ে প্রার্থী পরিবর্তন করা হয়েছে। তবে এই প্রার্থী নিয়ে তাদের কোনও চিন্তা নেই। কারণ, এর আগেও তিনি বিধানসভা ভোটে লড়েছিলেন এবং প্রার্থীর জামানত বাজেয়াপ্ত হয়েছিল। এছাড়াও তিনি বলেন, তৃণমূল প্রার্থী কাকলি ঘোষ দস্তিদার বিভিন্ন ইফতার পার্টিতে পোশাক বিতরণ করেছেন, যা ভোটের আইনের বিরোধী। এ ব্যাপারে ইলেকশন কমিশনে অভিযোগ জানাবেন তিনি। হাবরার আনোয়ারবেড়িয়ায় একটি সভায় ত্বহা সিদ্দিকী সরাসরি সাম্প্রদায়িক বিজেপিকে ভোট দিতে নিষেধ করেছিলেন। এ নিয়েও কাকলি ঘোষ দস্তিদারকে তুলোধোনা করেন তিনি। তাঁর প্রশ্ন, একটি ধর্মীয় অনুষ্ঠানে কি করে একটি রাজনৈতিক দলকে ভোট দিতে নিষেধ করা হয়? পাশাপাশি বিজেপি প্রার্থীর দাবি করেন,এখন ফুরফুরা শরীফের ত্বহা সিদ্দিকীর কথা মানুষ শোনেন না।

এদিকে বারাসতের বিজেপি প্রার্থীর হুমকির তীব্র বিরোধিতা করে ফেসবুক পোস্ট করেছেন অশোকনগর যুব তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি প্রদীপ সিং। তিনি পাল্টা বলেছেন, বিজেপির কর্মীরা চ্যালা কাঠ নিয়ে বেরোলে তৃণমূলের যুবকর্মীরা গোলাপ ফুল নিয়ে বেরোবে। তারপরেই বুঝে নেওয়া হবে।
অন্যদিকে অশোকনগরের বিধায়ক তথা উত্তর ২৪ পরগনা জেলাপরিষদের সভাধিপতি নারায়ণ গোস্বামী বারাসাতের বিজেপি প্রার্থীর নাম না করে তাঁকে তীব্র কটাক্ষ করেছেন। নারায়ণ গোস্বামীর সাফ কথা, বিজেপি কর্মীরা চ্যালা কাঠ নিক আর কাঁধে আস্ত গাছ নিক, বিজেপির সিট এবারে পশ্চিমবঙ্গে দুই সংখ্যায় পৌঁছোবে না। বারাসাতে ডা: কাকলি ঘোষ দস্তিদারের জয় শুধু সময়ের অপেক্ষা। সব মিলিয়ে বিজেপি প্রার্থীর চ্যালা কাঠ নেওয়ার নিদানে উত্তপ্ত হয়ে উঠল বারাসাতের রাজনীতি। যে বিতর্ক পৌঁছে গেল সামাজিক মাধ্যমেও।

2 Views