ওয়েব ডেস্ক : পশ্চিমবঙ্গের রূপকার, ভারতরত্ন, প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ডা: বিধানচন্দ্র রায়ের ১৪৩তম জন্মদিবস ও চিকিৎসক দিবস উদযাপিত হলো অশোকনগরে। অশোকনগর ডা: বিধানচন্দ্র রায় স্মৃতি রক্ষা কমিটি ও অশোকনগর-কল্যাণগড় পুরসভার যৌথ উদ্যোগে ১ জুলাই শনিবার সকালে পুরসভা প্রাঙ্গনে ডা: বিধানচন্দ্র রায়ের মর্মর মূর্তির পাদদেশে এই উদযাপন অনুষ্ঠান হয়। এদিন ডা: রায়ের মর্মর মূর্তির পাশাপাশি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ও বিদ্যাসাগরের মর্মর মূর্তিতে মাল্যদান এবং সংগীতের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সূচনা হয়। এরপর শুরু হয় ‘ডা: বিধানচন্দ্র রায়ের কর্মকান্ড ও উদ্বাস্তু স্বার্থে তাঁর উদ্যোগ’ বিষয়ে বক্তৃতা প্রতিযোগিতা। ছাত্রছাত্রীদের অংশগ্রহণে আয়োজিত এই প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অধিকার করে কল্যাণগড় বিদ্যামন্দিরে ছাত্র শাশ্বত দাস।দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থান দখল করে কল্যাণগড় বালিকা বিদ্যালয়ের ছাত্রী দেবাঞ্জনা দাস ও অশোকনগর বয়েজ সেকেন্ডারি স্কুলের ছাত্র মৈনাক চ্যাটার্জি।

এদিন এই অনুষ্ঠানে বিশিষ্ট চিকিৎসক ডা: পুষ্পেন্দু সেনগুপ্ত, ডা: সিদ্ধার্থ মুখার্জি, ডা: স্বপন চৌধুরী-সহ বেশ কয়েকজনকে সংবর্ধিত করা হয়। ডা: বিধানচন্দ্র রায়ের কর্মকান্ডের বিভিন্ন দিক নিয়ে বক্তব্য রাখেন পুরপ্রধান প্রবোধ সরকার, ডা: পুষ্পেন্দু সেনগুপ্ত, ডা: স্বপন চৌধুরী প্রমুখ। অনুষ্ঠানে একাধিক চিকিৎসক ও ছাত্রছাত্রীর হাতে মানপত্র ও উপহার তুলে দিয়ে সংবর্ধিত করেন পুরপ্রধান প্রবোধ সরকার, পুরপ্রধান পরিষদ সদস্য সমীর দত্ত, কৃষ্ণা চক্রবর্তী, স্মৃতি রক্ষা কমিটির সদস্য স্বপন দেব, বিদ্যুৎ দাস, অর্চনা দে বিশ্বাস প্রমুখ। উপস্থিত ছিলেন প্রাক্তন কাউন্সিলার অনুপ রায়, অতীশ সরকার, হাবরা ২ নং ব্লকের কর্মাধ্যক্ষ প্রবীর মজুমদার (গুপি), বিশিষ্ট নাগরিক বঙ্কিম চক্রবর্তী-সহ বহু মানুষ। উল্লেখ্য, বক্তৃতা প্রতিযোগিতার বিচারক ছিলেন অর্চনা দে বিশ্বাস ও প্রসেনজিৎ মুখার্জি। সমগ্র অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ডা: বিধানচন্দ্র রায় স্মৃতি রক্ষা কমিটির সভাপতি হিমাংশু দাস। সহযোগিতায় ছিলেন কমিটির অন্যতম উপদেষ্টা পীযূষকান্তি সাহা।

71 Views