তাপস মজুমদার, অশোকনগর : বারপোস্ট পুজোর মধ্য দিয়ে বর্ষবরণ করল অশোকনগর ফুটবল কোচিং সেন্টার। পাশাপাশি, খেলাধূলার সুবিধার জন্য ময়দানে স্থায়ী আলোর ব্যবস্থার উদ্বোধন করল। প্রতিবছরের মতো এ বছরও এই সেন্টার উদপযাপন করল বর্ষবরণ উৎসব। রবিবার বিকেলে অশোকনগর শক্তিসাধনা ময়দানে আয়োজিত এই উৎসবে উপস্থিত ছিলেন অশোকনগরের বিধায়ক তথা উত্তর ২৪ পরগনা জেলাপরিষদের সভাধিপতি নারায়ণ গোস্বামী, অশোকনগর কল্যাণগড় পুরসভার পুরপ্রধান প্রবোধ সরকার, কাউন্সিলার অরূপ দাস, চিরঞ্জীব সরকার, প্রাক্তন কাউন্সলার অনুপ রায়, হাবরা ২ নং পঞ্চায়েত সমিতির বিদ্যুৎ কর্মাধ্যক্ষ প্রবীর মজুমদার প্রমুখ।এদিন অশোকনগর ফুটবল কোচিং সেন্টারের পক্ষ থেকে সেন্টারের সভাপতি, কৃতি অধ্যাপক গবেষক ড. অভিজিৎ দাশকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়।পাশাপাশি সম্মাননা প্রদান করা হয় অশোকনগর শক্তিসাধনা ক্লাবের সভাপতি ও সম্পাদককে এবং ফুটবল কোচিং সেন্টারের প্রশিক্ষকদের।

উল্লেখ্য, বাচ্চাদের খেলাধূলার উন্নয়নে ময়দানে আলোর ব্যবস্থা করার জন্য গতবছর বিধায়ক নারায়ণ গোস্বামীর কাছে দাবি করেছিল অশোকনগর ফুটবল কোচিং সেন্টার। এই দাবিকে গুরুত্ব দিয়ে বিধায়কের তহবিল থেকে আলোর সুবন্দোবস্ত করেন নারায়ণ গোস্বামী। এদিন এই সেন্টারের প্রশিক্ষক ও সম্পাদক সৌরজিৎ দাশ বলেন, মোবাইল গেম থেকে দূরে সরিয়ে শিশুদেরকে মাঠে নিয়ে আসতে হবে। সেই প্রচেষ্টাই তিনি করছেন। শিশুদের মাঠে নিয়ে আসার জন্য অভিভাবক অভিভাবিকাদের প্রতি অনুরোধ জানান তিনি। অন্যদিকে, বিধায়ক নারায়ণ গোস্বামী এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, অশোকনগরে আগামীদিনে খেলাধূলার উন্নয়নে অনেক রকম পরিকল্পনা করা হয়েছে। খেলার মাঠগুলির সংস্কার করে খেলাধূলার উপযোগী করে তোলা হবে। অশোকনগর স্টেডিয়ামের বৃহত্তর উন্নয়নের পরিকল্পনা রয়েছে।পাশাপাশি বলেন, কল্যাণী ও বারাসাতের মতো অশোকনগরে বিধানচন্দ্র রায় ক্রীড়াঙ্গনে কলকাতা লীগের খেলা যাতে সংগঠিত করা যায়, তার জন্য চেষ্টা করবেন তিনি।

4 Views