ওয়েব ডেস্ক : সিটিজেনশিপ অ্যামান্ডমেন্ট অ্যাক্ট (সিএএ) বা নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন নিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং ভোটব্যাংক রাজনীতির জন্য অনুপ্রবেশকারীদের সুবিধা দিচ্ছেন তিনি। অভিযোগ কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর। বুধবার বালুরঘাটে দলীয় প্রার্থীর সমর্থনে আয়োজিত এক জনসভায় এই অভিযোগ করেন তিনি। লোকসভা ভোটের দিনক্ষণ ঘোষণার এ রাজ্যে এদিনই প্রথম জনসভা করেন শাহ। ভূপতি নগর বোমা বিস্ফোরণ মামলার দুস্কৃতিদের রক্ষার চেষ্টা করার জন্য এবং এনআইএ কর্তাদের বিরুদ্ধে মামলা করার জন্য এদিন তৃণমূল সরকারের তীব্র নিন্দা করেন তিনি। শাহ বলেন, মমতা দিদি নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন (সিএএ) সম্পর্কে মানুষকে বিভ্রান্ত করছেন। কেন তিনি উদ্বাস্তুদের নাগরিকত্ব পাওয়ার বিরুদ্ধে? আমি উদ্বাস্তুদের অনুরোধ করছি ভয় পাবেন না, দয়া করে নাগরিকত্বের জন্য আবেদন করুন, একেবারেই কোনও সমস্যা হবে না। তাদের বিরুদ্ধে কোনও পুলিশ মামলা করা হবে না। উদ্বাস্তুদের নাগরিকত্ব প্রদান আমাদের অঙ্গীকার।

উল্লেখ্য, কেন্দ্রীয় সরকার গত মাসে নাগরিকত্ব (সংশোধনী) আইন, ২০১৯ কার্যকর করেছে। ২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বরের আগে পাকিস্তান, বাংলাদেশ এবং আফগানিস্তান থেকে ভারতে আসা অনথিভুক্ত অমুসলিম অভিবাসীদের দ্রুত নাগরিকত্ব দেওয়ার জন্য সংসদে এই আইন পাস হওয়ার চার বছর পরে তা কার্যকর করল কেন্দ্র। উত্তর ২৪ পরগণার সন্দেশখালিতে তৃণমূল নেতাদের বিরুদ্ধে যৌন নির্যাতনের যে অভিযোগ উঠেছে তা উল্লেখ করে এদিন শাহ বলেন, এটি লজ্জার বিষয় যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একজন মহিলা মুখ্যমন্ত্রী হওয়া সত্ত্বেও অপরাধীদের রক্ষা করার চেষ্টা করেছিলেন। তাই আপনি যদি তৃণমূলকে ভোট দেন, তাহলে আপনি সন্দেশখালির নৃশংসতার পক্ষে ভোট দেবেন। রাজ্যে আর যাতে সন্দেশখালি না হয় তা নিশ্চিত করতে বিজেপিকে ভোট দেওয়া উচিত। রাজ্যে ৩০-এর বেশি আসনে বিজেপির জয় নিশ্চিত করার জন্য বাংলার ভোটারদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে শাহ বলেন, একমাত্র গেরুয়া দলই রাজ্যে অনুপ্রবেশ বন্ধ করতে পারবে।

3 Views